FASHON
  • ফিচার I বোহো অর্নামেন্টেশন

    খুব জাঁকালো নয়। তবে যেকোনো সাজপোশাকে যুক্ত করে বনেদিয়ানা ট্রেন্ডি লুক। মিনিম্যালিস্টিক হলেও আকর্ষণীয়

    পপিং পমপম
    রঙবেরঙের ছোট-বড় গোলাকার তুলতুলে বল। কখনো গুচ্ছ আকারে, কখনো একাই এক শ। ইউরোপিয়ান মিলিটারি ক্যাপ থেকে সাউথ আমেরিকান সেরাপেস- পোশাকের অর্নামেন্টেশনে এর ব্যবহার বহুদিনের। আর এখন তো ব্যবহৃত হচ্ছে অ্যাকসেসরিজ, ফুটওয়্যার আর জুয়েলারিতেও। প্লেফুল পমপম পিসগুলো গরমে কিংবা বসন্তের সময়ে বেশি উপযোগী হলেও পরে নেয়া যাবে বছরের যেকোনো সময়। অফিস থেকে বন্ধুদের গেট টুগেদার- যেকোনো সময় পরার উপযোগী আউটফিট অপশনকে উজ্জ্বল দেখাতে চমৎকার পমপম। তবে এর খুব বেশি ব্যবহার পুরো পোশাকের সৌন্দর্য মাটি করে দিতে পারে। তাই পমপমের ব্যবহার হওয়া চাই পরিমিত। পোশাকে বিভিন্নভাবে পমপম ব্যবহার করা যায়। টি-শার্ট, শার্ট, টপস, বটম কিংবা স্কার্ফের রিমে এটি তৈরি করে কুল ফিউশন আউটফিট অপশন। এগুলো দিয়ে তৈরি ট্রিমও ব্যবহার করা যেতে পারে পোশাকে। এতে সৃষ্টি করা যায় কালারফুল কনট্রাস্ট। যেকোনো পোশাকের সঙ্গে এই ডিটাচেবল অ্যাকসেসরিজ মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করে নিয়ে তৈরি করা যায় কাঙ্ক্ষিত লুক। পমপমের জুয়েলারিও ভীষণ ফাঙ্কি এবং ভাইব্র্যান্ট। যেকোনো সাদামাটা আউটফিট এতে হয়ে ওঠে চমকদার। পমপম দেয়া নেকপিস, ব্রেসলেট, ইয়ার রিং কিংবা অ্যাঙ্কলেট লুকে দেবে ইনস্ট্যান্ট বোহো ইফেক্ট। ফুটওয়্যারেও এটি যোগ করে চমক। ফ্ল্যাট বা লো হিলের স্যান্ডেল কিংবা জুতা যেকোনো আউটফিটের কম্বিনেশনে নজর কাড়বে নিমেষেই। তবে বেশি জবরজং নয়, এক রঙা প্লেইন পোশাকে এগুলো বেশি মানানসই। এর এমবেলিশমেন্ট ব্যাগের পুরোদস্তুর চেহারা পাল্টে দিতে পারে। পমপম দেয়া ক্লাচ বা স্লিং ব্যাগ এ সিজনের মাস্ট হ্যাভ আইটেমগুলোর একটি। এগুলোতে তৈরি কি রিং, ব্যাগ চার্মের মতো ছোট ছোট অ্যাকসেসরিজও হয়ে উঠতে পারে ফ্যাশনের আকর্ষণীয় অনুষঙ্গ। মজার ব্যাপার হচ্ছে, পুরোনো পোশাক কিংবা ব্যাগে সামান্য পমপমের এমবেলিশমেন্ট জুড়ে দিলে তা নিমেষেই হয়ে ওঠে নতুনের মতো।
    ট্রেন্ডি টাসেল
    কিউট এবং কালারফুল। দেখতে যেমন মজার, টাসেল নিয়ে এক্সপেরিমেন্টও এক অনন্য অভিজ্ঞতা। একসময় ক্র্যাফটিংয়ে জনপ্রিয় এই এমবেলিশমেন্ট পিসগুলো এখন দেদার ব্যবহৃত হচ্ছে ফ্যাশনের প্রায় সব ধরনের অনুষঙ্গে। উজ্জ্বল রঙ আর ভিন্ন ভিন্ন ম্যাটেরিয়ালে তৈরি টাসেল যেকোনো লুককে ট্রেন্ডি এবং সতেজ দেখানোর সহজ উপায়। তাই খ্যাতনামা সব ব্র্যান্ড স্টোর থেকে হাই স্ট্রিট ফ্যাশন- সবেতেই এর দেখা মিলছে। পোশাক কিংবা অ্যাকসেসরিজে মিনিম্যালিজম যাদের পছন্দ, তাদের জন্য জুতসই অপশন এগুলো। খুব বেশি জাঁকজমকপূর্ণ না দেখিয়ে যেকোনো লুককে আকর্ষণীয় করে তুলতে বেছে নেয়া যায় টাসেলে তৈরি ফ্যাশনেবল প্রডাক্ট। শর্ট থেকে শার্ট, টপ, ড্রেস কিংবা কুর্তা- কল্পনীয় সব পোশাকে এর ব্যবহার হচ্ছে ইদানীং। বাদ পড়ছে না বটম আর দোপাট্টাও। বোহেমিয়ান থেকে ফ্লাটিফান- যেকোনো লুক তৈরিতে অনবদ্য টাসেল দেয়া প্রতিটি পোশাক। সুতা, চামড়া কিংবা বিডস- হরেক রকম ম্যাটেরিয়ালে তৈরি এই উপকরণ যেকোনো ফুটওয়্যারকে করে তোলে অনন্য। টাসেলড হিল, স্লিপার কিংবা গ্ল্যাডিয়েটর- যেকোনো আউটফিটের সঙ্গে সহজে মানানসই বলে তৈরি করা যায় চমৎকার সব লুক। টাসেলের জুয়েলারিতেও চমক আনা যায় সাজে। স্টাইলে সাধারণ হলেও যেকোনো উপলক্ষে নজর কাড়তে বাধ্য এগুলো। তাই পরে নেয়া যায় প্রতিদিন আর বিশেষ সব আয়োজনে। সাধারণ সুতা, বিডস কিংবা হাই শাইন মেটালে তৈরি টাসেলড জুয়েলারি মিলবে বাজারে। টাসেলের এমবেলিশমেন্টে তৈরি নেকলেস, ব্রেসলেট, ইয়ার রিং এমনকি আংটিও সাজে স্টেটমেন্ট যোগ করে।
    ফ্রিঞ্জ ফিয়েস্তা
    এ বছর সত্তরের ফ্রিঞ্জ থাকছে ট্রেন্ডের শীর্ষে। ফলে খুব জলদি এটি হটছে না ফ্যাশন থেকে। স্টাইল, শেপ আর ফর্ম নিয়ে খেলাও হবে মেলা। ফলে একদম মাইক্রো মিনি ফ্রিঞ্জ ট্রিমিং থেকে, পেপার শ্রেড স্টাইল কিংবা লং স্ট্রিপড ফ্রিঞ্জ- ফ্যাশনে উপস্থিত থাকবে সবই। জ্যাকেট, টি-শার্ট, স্কার্ট কিংবা শ্রাগের মতো পোশাকে তো বটেই, ফ্রিঞ্জড অ্যাকসেসরিজেরও কদর থাকবে বছরজুড়ে। বুট, হিল কিংবা ফ্ল্যাট স্যান্ডেলে ব্যবহৃত হবে দেদার। বিভিন্ন স্টাইলের ব্যাগেও থাকবে এর এমবেলিশমেন্ট। বাদ পড়বে না জুয়েলারিও। আর ফ্রিঞ্জড স্টাইলিংয়ে লেয়ারিং সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি। যেকোনো পোশাকের সঙ্গে ফ্রিঞ্জড শ্রাগ, জ্যাকেট কিংবা কেপে তৈরি হয় চমৎকার রানওয়ে ইনস্পায়ারড আউটফিট অপশন। রঙবেরঙের লেইসি কিংবা মেটালিক ফ্রিঞ্জও ব্যবহৃত হতে পারে এগুলোতে। মিডি কিংবা ফ্লোর লেংথ স্কার্টে ফ্রিঞ্জড হেমলাইন চমৎকার দেখায়। সঙ্গে বক্সি টি-শার্ট আর মানানসই হিল- তৈরি করবে পারফেক্ট কম্বিনেশন। পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে ফ্রিঞ্জড স্কার্ফ কিংবা স্টোল লুকের একঘেয়েমি দূর করে। যোগ করে পারফেক্ট প্লেফুলনেস। ফ্রিঞ্জড ক্রপ টপেরও দেখা মিলবে এ বছর। সঙ্গে মানানসই বটম আর ফুটওয়্যার সাজে দেবে পূর্ণতা। তবে ফ্রিঞ্জড পোশাক ব্যবহারের সময় খেয়াল রাখতে হবে সঙ্গের অন্যান্য অনুষঙ্গ যেন মিনিম্যালিস্টিক ও মডার্ন হয়। লুকে যারা আরও বনেদিয়ানা চান, তারা পোশাকের বদলে ফ্রিঞ্জড অ্যাকসেসরিজ বেছে নিতে পারেন। ইয়ার রিং, স্টেটমেন্ট নেকপিস, ফ্রিঞ্জড ফুটওয়্যার কিংবা ব্যাগও এ ক্ষেত্রে জুতসই।

     জাহেরা শিরীন
    মডেল: অন্তরা, সূর্য ও ইনায়া
    মেকওভার: পারসোনা
    ছবি: তানভীর খান


    Subscribe & Follow

    JOIN THE FAMILY!

    Subscribe and get the latest about us
    TRAVELS
    LIFESTYLE
    RECENT POST
    ময়লার রঙে
    23 November, 2017 2:18 am
    ভিক্টোরিয়া
    23 November, 2017 1:48 am
    রিচম্যানে রিচ
    23 November, 2017 12:10 am
    BANNER SPOT
    200*200
    SOLO PINE @ INSTRAGRAM
    FIND US ON FACEBOOK