FASHON
  • ফিচার I চশমাচোখের মেকআপ

    চশমায় যারা অভ্যস্ত, কেমন সাজে তাদের চেহারা হবে আকর্ষণীয়? উপায়টা কিন্তু সাধারণ মেকআপ থেকে ভিন্ন

    কেবল প্রয়োজনেই নয়, শখে কিংবা লুক পাল্টানোর জন্যও অনেকে চশমা পরেন। সারা বিশ্বেই ফ্যাশন অ্যাকসেসরিজ হিসেবে চশমার জনপ্রিয়তা ব্যাপক। চশমা চেহারায় আলাদা সৌন্দর্য নিয়ে আসে। কিন্তু এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, যারা নিয়মিত চশমা পরেন, তারা মনে করেন, ভালো করে সাজলেও চশমা পরলে তত সুন্দর হয়ে ওঠে না। এর প্রধান কারণ হলো, এটি চোখ আড়াল করে ফেলে। মেকআপের প্রধান অংশ হলো চোখ সাজানো, এমনভাবে, যেন এর সৌন্দর্য দৃশ্যমান হয়ে ওঠে। চশমা যখন তা ঢেকে ফেলে, তখন সৌন্দর্যহানি ঘটবেই। মেকআপ বিশেষজ্ঞরা এর সমাধান দিয়েছেন। তারা এমন কিছু কৌশল উদ্ভাবন করেছেন, যেগুলো চশমা-পরা নারীর সৌন্দর্য বাড়াবে। নতুন মাত্রাও আনবে চেহারায়।
    ভ্রুর শেপ
    চশমা যারা নিয়মিত পরেন, তাদের সবার আগে নজর দিতে হবে আইব্রাওয়ের প্রতি। সেটি যেন নিখুঁতভাবে শেপ করা থাকে। তবে এর সঙ্গে চশমার ফ্রেমের কম্বিনেশন থাকতে হবে। যাদের ভ্রু খুব পাতলা এবং চিকন, তাদের অপেক্ষাকৃত পাতলা ফ্রেমের চশমা বেছে নেয়া উচিত। আর ভ্রু মোটা এবং ঘন হলে থিক, ডার্ক ফ্রেমের চশমা মানানসই। চশমা পরার পর ভ্রু যদি তার সঙ্গে মানানসই না হয়, ফাঁকা ফাঁকা লাগে, তাহলে ভ্রু পেন্সিল ব্যবহার করে এমনভাবে সেটি আঁকা উচিত, যেন দুয়ের মধ্যে সামঞ্জস্য আসে।
    ম্যাট ফাউন্ডেশন এবং ব্লাশ
    তৈলাক্ত ত্বকে ফাউন্ডেশন ব্যবহার করা হলে চশমা পরার পর তা নাকের উপর থেকে বারবার নেমে আসতে চায়। মেকআপের বেজে চশমার মৃদু ঘর্ষণের ফলে চোখের চারপাশ নষ্ট হবার আশঙ্কা থেকেই যায়। তাই চশমা যারা পরেন, তাদের সব সময়ই ম্যাট ফাউন্ডেশন ব্যবহার করা উচিত। সেটি যদি পছন্দ না হয়, তাহলে ব্যবহার করতে হবে ওয়াটার-রেসিস্ট্যান্ট ফাউন্ডেশন। এরপর অবশ্যই দিতে হবে হালকা পাউডারের ছোঁয়া। এতে চশমা পরার পর মেকআপের বেজ নষ্ট হবার শঙ্কা থাকবে না। ব্লাশঅনের ক্ষেত্রেও বেছে নিতে হবে ম্যাট নাচারাল কালার। শিমার এড়ানো ভালো, তবে যারা এটি ভালোবাসেন, তারা খুব হালকা করে দিতে পারেন।
    চোখ সাজানোয় গুরুত্ব
    খেয়াল রাখতে হবে, চশমায় চোখ যেন নিষ্প্রভ মনে না হয়। চোখ সাজানোয় প্রথমত বেছে নিতে হবে কিছুটা ভিন্নধর্মী রঙ। অফ ট্র্যাক ধাঁচের বিভিন্ন শেড লাগিয়ে পরীক্ষা করে দেখতে হবে, কোন কোন রঙ চোখ ও চশমার ফ্রেমের সঙ্গে মানিয়ে যায়। হালকা ও গাঢ়- দুই ধরনের রঙের জন্যই এটা প্রযোজ্য। মানানসই রঙ পেয়ে যাওয়ার পর তা ব্যবহার করলে চশমা পরা চোখ আর প্রাণহীন মনে হবে না। আইশ্যাডোর বেজটা খুব মসৃণ হওয়া চাই, পাশাপাশি ব্যবহার করতে হবে খুব উন্নত মানের একটি প্রাইমার। গ্লসি বা চকচকে শেড নয়, এখানেও চাই ম্যাট ফিনিশিং। সবশেষে দিতে হবে ট্রান্সলুসেন্ট পাউডারের ছোঁয়া।
    আইলাইনার
    এটি ব্যবহারেই চোখ হয়ে ওঠে চোখে পড়ার মতো। তবে চশমাপরা চোখের ক্ষেত্রে এই কাজে কিছু কৌশল জরুরি। ফ্রেম যদি গাঢ় ও মোটা হয়, তবে আইলাইনারের রেখাও টানতে হবে ঘন এবং কিছুটা মোটা করে। কিন্তু চশমা ফ্রেমলেস বা পাতলা ফ্রেমের হলে সেই রেখাও খুব পাতলা হওয়া চাই। যারা এই দুয়ের মাঝামাঝি, তাদের জন্য চোখের উপরের পাতায় পাতলা লিক্যুইড আইলাইনার। এবং নিচের ওয়াটারলাইন অনুসরণ করে একটি ন্যুড শেড লাইনার ব্যবহার করতে হবে। এতে চশমা ছাপিয়েও চোখটাকে অনেক প্রাণবন্ত মনে হবে।
    মাসকারা
    এটি ব্যবহারে চোখের পাতা ঘন এবং চোখ বড় মনে হয়। সাধারণভাবে চোখের উপরের ও নিচের পাতায় মাসকারার পরত একইভাবে ঘন করে বারবার দেয়া হয়। কিন্তু চশমা-চোখের মেকআপে নিচের পাতায় মাসকারার পরত ব্যবহার না করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তা করতে হবে উপরের পাতায়। সেখানে মাসকারা একবার শুকিয়ে যাওয়ার পর আরেকবার কিংবা প্রয়োজনে তারপরেও ব্যবহার করা যেতে পারে। কিন্তু নিচের পাতায় না করতে পারলেই ভালো, করলেও তা খুব হালকাভাবে এবং একবারের বেশি কিছুতেই নয়।
    ঠোঁটসাজে
    মেকআপের খুব সাধারণ একটা নিয়ম হচ্ছে, চোখ খুব বেশি সাজানো হলে, ঠোঁটের সাজ একেবারে সাধারণ হওয়া চাই। চশমা চোখের মেকআপে সে কথাটা আরও প্রকটভাবে সত্যি। কারণ, চশমার জন্য চোখের উপরই সবার নজর আগে পড়ে। ঠোঁটে গাঢ় রঙ ব্যবহার করা হলে লুকে ভারসাম্য আসে। তবে সবচেয়ে ভালো হয়, স্কিন টোন এবং চশমার ফ্রেমের রঙ মেনে ঠোঁটের জন্য মাঝামাঝি ধাঁচের রঙ বেছে নেয়া। যাতে খুব বেশি উজ্জ্বল বা অনুজ্জ্বল কোনোটাই মনে না হয়।
    উৎসবের লুক
    কোনো বিশেষ উৎসব বা পার্টির মেকআপে কিছুটা ভিন্নতা আনা যেতে পারে। তবে তাতেও মূল বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে। এক্সপেরিমেন্ট হিসেবে বোল্ড আই মেকআপের সঙ্গে লিপস্টিক গ্লসি হতে পারে। সে ক্ষেত্রে স্মোকি আই মেকআপ খুব মানানসই হবে চশমার সঙ্গে। আরও গর্জাস হয়ে ওঠার জন্য খুব হালকা করে শিমার ব্যবহার করলে বেমানান লাগবে না।

     রত্না রহিমা
    মডেল: আয়শা
    মেকওভার: পারসোনা
    ছবি: তানভীর খান


    Subscribe & Follow

    JOIN THE FAMILY!

    Subscribe and get the latest about us
    TRAVELS
    LIFESTYLE
    RECENT POST
    দলীয় চিত্র
    22 October, 2017 3:50 am
    আনুশকার ‘নুশ’
    22 October, 2017 3:50 am
    ব্রণ
    21 October, 2017 10:35 pm
    BANNER SPOT
    200*200
    SOLO PINE @ INSTRAGRAM
    FIND US ON FACEBOOK