FASHON
  • প্যামপারড I বশে বেবি হেয়ার

    শিশুর চুল নয়। কিন্তু শিশুর মতোই বেপরোয়া। কীভাবে বাগে আনা যায়?

    পাতলা, পালকসদৃশ ছোট ছোট চুল। হেয়ারলাইনের চারপাশজুড়ে যার বিস্তার। পুরো চুল সুন্দর সেট করে নেয়ার পর এর হঠাৎ উঁকিঝুঁকি সাজের ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। ক্লিপ আপ করার মতো বড় নয়, খুলে রাখলেও চেহারার এদিক-সেদিক বেবি হেয়ারের লেপ্টে থাকা অস্বস্তিকর। তবে শোনা যায়, ‘উইথ ফ্রাস্ট্রেশন, কামস ইনোভেশন’। তাই বেবি হেয়ারকে বাগে আনারও বেশ কিছু পদ্ধতি বেরিয়েছে। সঙ্গে যোজিত হয়েছে স্টাইলিংও। সহজে, চটজলদি এবং বেশ কার্যকর উপায়ে।
    জন্ম থেকে যারা বেবি হেয়ারের উপদ্রবে ভুগছেন, তাদের জন্য সমবেদনা এ জন্য যে, অসাবধানতাবশতও এটি জন্মায় মাথায়। চুল আঁচড়ানোর ভুল পদ্ধতি, বিশেষ করে ভেজা চুল আঁচড়ানোর ফলে এ সমস্যা বেশি তৈরি হয়। এ ছাড়া খুব টেনে বাঁধা কিংবা কেমিক্যাল রি-অ্যাকশনের ফলেও বেবি হেয়ার জন্ম নেয়।
    প্রথমেই প্রতিরোধ জরুরি। সে জন্য চুলের প্রতি যত্নশীল হওয়া চাই। খুব টানাহেঁচড়া করে আঁচড়ানো একদম মানা। বরং চুল যেদিকে বেড়ে ওঠে, সব সময় সেদিকে আঁচড়াতে হবে। শ্যাম্পুর পর লিভ-ইন প্রডাক্টের ব্যবহার চুলের ফ্রিজি ভাব দূর করবে। এ ছাড়া বেশি হিট আর কেমিক্যাল যুক্ত হেয়ার প্রডাক্ট ব্যবহারের ফলেও বেবি হেয়ার জন্মাতে শুরু করে। এগুলো এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।
    তবে মাথায় যদি বেবি হেয়ার এসে যায়, তা আয়ত্তে রাখার পদ্ধতিগুলো জানা দরকার। প্রথমেই পানি দিয়ে ভিজিয়ে নেয়া চাই চুল। কারণ, বেবি হেয়ারকে বাগে আনার জন্য এটাই সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি। তারপর এ চুল স্ক্যাল্পের এক থেকে দুই ইঞ্চি সরিয়ে নিয়ে ব্লো ডাই করে নিতে হবে। হট এবং কুল দুটো সেটিংয়ে ব্লো ডাই জরুরি। এতে ওভার ডাই হবে না এগুলো। তারপর সেটিংয়ের পালা। একটা ভালো ব্রিসলের টুথব্রাথ নিয়ে তাতে হেয়ার স্প্রে ছিটিয়ে নিন। মিডিয়াম টু লাইট হোল্ড হেয়ার স্প্রে এ জন্য সবচেয়ে উপযোগী। তারপর ব্রাশটা হেয়ারলাইন বরাবর বুলিয়ে নিতে হবে। মাথার বাকি চুলের উপর বসিয়ে দিতে হবে বেবি হেয়ার। টুথব্রাশ ব্যবহার না করতে চাইলে টিস্যু মুড়িয়ে নিয়ে ব্যবহার করা যায়। টিস্যুতে স্প্রে দিয়ে তা বুলিয়ে নেয়া যায় বেবি হেয়ারের উপর।

    এতেও সুন্দর সেট হয়ে থাকবে চুল। হেয়ার স্প্রে ব্যবহারে অনীহা থাকলে স্টাইলিং ক্রিম কিংবা হেয়ার সেরামও ভালো অপশন। আঙুলের ডগা দিয়ে বেবি হেয়ারে মাখানো যেতে পারে এগুলো। নতুবা টুথব্রাশই ভরসা। তবে সুপার টাইট আর সুপার স্লিক লুক যাদের পছন্দ নয়, তাদের জন্য রয়েছে ভিন্ন পদ্ধতি। মেসিটাই সে ক্ষেত্রে মানানসই। পছন্দও অনেকের। হেয়ারলাইনের চারপাশে থাকা বেবি হেয়ারগুলোকে এ ক্ষেত্রে সফট লুক দিতে হবে। এ জন্য হেয়ার পাউডার ব্যবহার করলে সবচেয়ে ভালো হয়। চুলের উপর ছিটিয়ে দিয়ে আলতো হাতে ঘষে সেট করে নিতে হবে। এতে সুন্দর ভলিউম তৈরি হবে হেয়ারলাইনজুড়ে। তবে পাউডার ব্যবহারের সময় খেয়াল রাখতে হবে, চুল যেন একদম শুকনো থাকে। মেসি লক, পনিটেইল, ব্রেইড কিংবা হাফ আপ ডু হেয়ারস্টাইলের সঙ্গে চমৎকার দেখায় মেসি বেবি হেয়ার।

     জাহেরা শিরীন
    মডেল: মৌসুম
    মেকওভার: পারসোনা
    ছবি: ক্যানভাস


    Subscribe & Follow

    JOIN THE FAMILY!

    Subscribe and get the latest about us
    TRAVELS
    LIFESTYLE
    RECENT POST
    ওজন কমাতে টেকার
    15 December, 2017 3:35 pm
    BANNER SPOT
    200*200
    SOLO PINE @ INSTRAGRAM
    FIND US ON FACEBOOK